নারায়ণগঞ্জ টাইমস | Narayanganj Times

বুধবার,

২০ অক্টোবর ২০২১

‘পাঠানটুলী ভোকেশনাল খেলার মাঠ ধ্বংস করা যাবে না’

মুহাম্মদ মাসুম খান

প্রকাশিত:১৫:৪৭, ১৪ জুন ২০২১

‘পাঠানটুলী ভোকেশনাল খেলার মাঠ ধ্বংস করা যাবে না’

নারায়নগঞ্জ, হাজীগঞ্জ, পাঠানটুলিতে অবস্থিত ভোকেশনাল টেকনিক্যাল ইনস্টিউটের খেলার মাঠ একটি ঐতিহ্যবাহী খেলার মাঠ স্বাধীনতার পূর্ব থেকেই এখানকার  জমি খেলার মাঠ হিসেবে ব্যবহ্যত হতো স্বাধীনতার পর ভোকেশনাল ইন্সটিউট নির্মিত হলে এই খেলার  মাঠটি রেখেই প্রতিষ্ঠান নির্মিত হয়েছিল তখন থেকেই এই মাঠটি অত্র এলকার শিশু-কিশোর, তরুন,যুবক তথা সর্বস্তরের মানুষের খেলাধুলা সাংস্কৃতিক চর্চায় অবদান রেখে চলেছে এক সময় মাদক এবং অপরাধের আখড়া হিসেবে পরিচিত এই এলাকায় মাঠটি আলোকবর্তিতাবাহী হিসেবে আবির্ভুত হয়েছিল এই মাঠ এবং প্রতিষ্ঠানের  কারনে হাজীগঞ্জ, পাঠানটুলি, এনায়েত নগর,আইলপাড়া, কিল্লারপুল, পানির কল, চৌধুরী বাড়িসহ বিস্তৃত এলাকার শিশু- কিশোর, তরুন  যুবক সমাজ শিক্ষার আলোতে আলোকিত হয়েছে,খেলাধুলা করে মাদকমুক্ত হিসেবে গড়ে উঠেছে শুধু খেলাধুলা নয় ভোকেশনাল ইন্সটিউটের ভিতরের  পুকুরই ছিল পাঠানটুলি,আইল পাড়া এলাকার সর্বস্তরের গোসল করার একমাত্র ব্যবস্থাএই মাঠের সাথে এই এলাকার মানুষের নাড়ির সম্পর্ক, এই মাঠে রয়েছে এই এলাকার মানুষ আবেগ আর ভালবাসার শিকড় এই খেলার মাঠ থেকে বেড়িয়ে এসেছে অসংখ্য জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক মানের ফুটবলার এবং ক্রিকেটার, এথলেট এই মাঠে ছোট বেলা থেকে খেলে বড় হয়েছে জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ন সুজন, এই মাঠে খেলাধুলা করেছে জাতীয় ফুটবলার মোতালেব ভাই, ছেগার ভাই, সোহেল রানাসহ প্রমুখ খেলোয়াড় এই ভোকেশনাল মাঠ থেকে বের হয়ে এসেছিল জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার মুহাম্মদ শরিফ এই মাঠে খেলেছে জাতীয় ক্রিকেটার জাহাংগীর শাহরিয়ার হোসেন বিদ্যুএখানে খেলেছে  ঢাকা ১ম বিভাগে খেলা ক্রিকেটার নাসির, জুয়েল হোসেন মনা, মৃদুল, পাইনিওর ফুটবল লীগে খেলা অনেক ফুটবলার এবং  জাতীয় স্কুল ক্রিকেটে খেলা অসংখ্য ক্রিকেটার

 দীর্ঘদিন ধরে কতিপয় অদুরদর্শি, ক্রীড়াবিমুখ প্রতিষ্ঠান প্রধান খেলার মাঠটিকে বন্দ করার পায়তারা করে আসছে ইতিমধ্যে সর্বস্তরের  জনগনের বাধা সত্বেও ভিবিন্ন সময় ভবন নির্মানের অজুহাতে  খেলার মাঠটিকে ছোট করে এনেছে সর্বস্তরের জনগনের খেলাধুলা করার অধিকার খর্ব করেছে সীমিত সময়ের জন্য খেলার সুযোগ রেখে অত্র এলাকার শিশু,কিশোরদের নিস্পাপ দুরন্তপনাকে, খেলাধুলা করার অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছে

 শিকড়ের টানে ঐতিহ্য বাঁচিয়ে রাখতে এলাকার নতুন প্রজন্মকে মাদক থেকে রক্ষা করতে সর্বস্তরের জনগন প্রতিবারই ক্রীড়াবিমুখ প্রতিষ্ঠান প্রধানের ষড়যন্ত্র রুখে দিয়েছে

 ইদানিং প্রতিষ্ঠানের প্রশাসন আবারো ভবন নির্মানের অজুহাতে মাঠকে পুরোপুরি দখল করার উদ্যোগ নিয়েছে খবর পাওয়া মাত্রই দলমত নির্বিশেষে নারী-পুরুষ  সবাই এই মাঠকে রক্ষার জন্য আপন তাগিদে বের হয়ে আসেন জেলা প্রশাসকের কাছে মাঠ রক্ষার দাবীতে স্মারকলিপি পেশ,মানববন্ধন, প্রতিবাদ সভা সহ বিভিন্ন ধরনের কর্মসুচী পালন করেন তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল ভোকেশনাল ইন্সটিটিউটের গেইটের সম্মুখে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয় উক্ত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন আইল পাড়া পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি  হানিফ প্রধান উপস্থিত ছিলেন , বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শাহ আলম, জাতীয় সাবেক ফুটবলার সুজন মোতালেব,ছেগার, হানিফ,এডভোকেট শুভ, সুইট,শিক্ষক,সাংবাদিক,ডাক্তার,ইমাম,ব্যবসায়ী,ছাত্র, শিশু কিশোর, তরুন, বয়োজৈষ্ঠ বিভিন্ন শ্রেনি পেশার সর্ব স্তরের মানুষ

 

সকলের একটাই দাবী ভোকেশনাল খেলার মাঠকে যেভাবেই হউক রক্ষা করতে হবে এই মাঠ না থাকলে অত্র এলাকার যুব সমাজ ধ্বংস হয়ে যাবে, মাদক আর নেশার ছোবলে  এমনিতেই  জনসংখ্যা বৃদ্ধির কারনে, গার্মেন্ট শিল্পের শ্রমিক অধ্যষিত এলাকা হওয়ায় আশে পাশের ফাকা জমি সব বিলীন হয়ে গেছে আবাসনের কারনে,শিল্প কারখানার কারনে  ভোকেশনাল খেলার মাঠ আর আইটি স্কুলের মাঠ ছাড়া বিশাল জনগোষ্টির এই এলাকায় কোন খেলার মাঠ নেই

 জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রচন্ড  ক্রীড়াবান্ধব জননেত্রী শেখ হাসিনা যেখানে ক্রীড়া উন্নয়নে এবং খেলার মাঠ রক্ষায় আপোষহীন সেখানে ভোকেশনাল মাঠ নিয়ে প্রতিষ্ঠান প্রধানের এই দৃষ্টিভঙ্গি অত্যন্ত অনাকাংখিত, অগ্রহনযোগ্য এবং অশিক্ষকসুলভ

 

 তাছাড়া প্রধানমন্ত্রী একাধিকবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের খেলার মাঠে এলাকার সর্বস্তরের মানুষের খেলাধুলা করার  সুযোগ দেয়ার বিবৃতি দিয়েছেন

এলাকার মানুষের একটাই দাবী ভোকেশনাল খেলার মাঠকে  কোন ভাবেই ধ্বংস হতে দেবনা এলাকার আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ অনেকেই মনে করছেন ভোকেশনাল প্রধান বর্তমান সরকারের ক্রীড়াবান্দব ইমেজকে বিতর্কিত করার জন্য এই ধ্বংসাত্মক কাজ করছে কিনা ক্ষতিয়ে দেখতে হবে উল্লেখ্য ভোকেশনাল ইন্সটিউটে যথেষ্ট জায়গা রয়েছে কতৃপক্ষ ইচ্ছা করলেই মাঠটি অক্ষত রেখে অন্যত্র  ভবন নির্মান করতে পারে এই ব্যাপারে প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষের সাথে যোগাযোগ করার চেস্টা করে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হই এলাকাবাসী বলছেন, মাঠ রক্ষার আন্দোলন কেউ থামাতে পারবেনা মানববন্ধন থেকে   স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সাংসদ এবং মেয়র মহোদয়ের কাছে প্রানপ্রিয় এই মাঠটি রক্ষার জন্য উদাত্ত আবেদন জানানএছাড়াও অত্র এলাকায় প্রয়োজনীয় আরো খেলার মাঠ নির্মান করার জন্য মেয়র মহোদয়ের দৃষ্ঠি আকর্ষন

 অত্যন্ত দুঃ,খের  বিষয় বাংলাদেশের ক্রীড়ানঙ্গনের অসংখ্য তারকার জন্মস্থান নারায়নগঞ্জে খেলার মাঠ  দ্রুত কমে এসেছে এক সময়ের প্রখ্যাত  আদমজি খেলার মাঠ অনেক আগেই বিলীন হয়ে গিয়েছে বরফ কল মাঠ প্রায়ই খেলার জন্য বন্দ করে দেয়া হয়

 নারায়নগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্রতিটি ওয়ার্ডে অন্তত একটি  খেলার মাঠ করে দেয়ার দাবী অবিলম্বে বাস্তবায়ন করা না হলে আগামী প্রজন্ম নিশ্চিত ধ্বংস হয়ে যাবে

 

  তাই সার্বিক বিবেচনায় জনগনের বৃহত্তর স্বার্থে পাঠানটুলি  ভোকেশনাল খেলার মাঠ রক্ষা করার জন্য সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ এবং শিশু-কিশোর তরুন কল্যান পরিষদের পক্ষ থেকে ভোকেশনলাল মাঠ রক্ষার আন্দোলনের সাথে একাত্মতা ঘোষনা করেছে চাদের হাট নামক মানকবাধিকার সংস্থাসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংস্থা মাঠ রক্ষা করার আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়েছে খেলাধুলা করারমতো  সাংবিধানিক অধিকার আদায়ে খেলার মাঠ রক্ষার আন্দোলনকে  কেউ দাবায়ে রাখতে পারবে না ইনশা আল্লাহ