নারায়ণগঞ্জ টাইমস | Narayanganj Times

মঙ্গলবার,

২৮ মে ২০২৪

ট্রাফিক পুলিশ, রাজনৈতিক নেতা ও অসাধু লোকদের মদদে

শহর জুড়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে অবৈধ অটোরিকশা-সিএনজি

নারায়ণগঞ্জ টাইমস

প্রকাশিত:২৩:০০, ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

শহর জুড়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে অবৈধ অটোরিকশা-সিএনজি

নারায়ণগঞ্জ শহরের  হকার সমস্যা ও যানজট নিরসনে এক টেবিলে নারায়ণগঞ্জের জনপ্রতিনিধি বসার পর থেকেই শহরে হকার, অবৈধ স্ট্যান্ড ও দখলদারদের উচ্ছেদ করে দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

পুরো শহরই এখন অনেকটা ফাঁকা। তবে হকার উচ্ছেদ করা হলেও এখনও নারায়ণগঞ্জ শহর দাপিয়ে বেড়াচ্ছে ব্যাটারিচালিত অবৈধ অটোরিকশা, মিশুক ও সিএনজি।

পুরো শহরে জুড়েই সিএনজি ও অবৈধ অটোরিকশার যত্রতত্র পার্কিং এর কারণে শহরে যানজট বাড়ছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে নগরবাসীকে।

অভিযোগ রয়েছে ট্রাফিক পুলিশ ও রাজনৈতিক নেতাসহ এক বিশেষ শ্রেণীর পেশার অসাধু লোকদের ম্যানেজ করে শহরে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে নিষিদ্ধ এসব ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ।

সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, শহরের চাষাড়া, কালীবাজার, দুই নং রেলগেইট, জিমখানা ও নিতাইগঞ্জ মোড়ে সাড়ি সাড়ি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা, মিশুক ও সিএনজি অটোরিকশা যত্রতত্র পার্কিং করে যাত্রী উঠানামা করছে। 

জানাগেছে, নারায়ণগঞ্জে প্রতিদিন কয়েক হাজার ছোট-বড় গাড়ি চলে এ শহরের একমাত্র চাষাড়া দিয়ে। শহরটি ব্যবসায়ীদের প্রাণকেন্দ্র হওয়ায় নানান কাজে বিভিন্ন স্থান থেকে প্রতিদিন কয়েক লাখ মানুষ আসে এ শহরে।

আর এসব মানুষের ভোগান্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে শহর ঘিরে যত্রতত্র অপরিকল্পিতভাবে গড়ে ওঠা অবৈধ অটোরিকশা, মিশুক ও সিএনজি চালিত অটোরিকশা স্ট্যান্ড । 

এছাড়াও শহরের বঙ্গবন্ধু প্রধান সড়কের যেখানে-সেখানে যে যার মতো অটোরিকশা পার্ক করে যানজট সৃষ্টি করছে।

জানাগেছে, উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও পুরো শহর দাপিয়ে বেড়াচ্ছে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা, মিশুক ওফিটনেস বিহীন সিএনজি চালিত অটোরিকশা। 

নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক পুলিশ বলছে,  তারা ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা মিশুক ও অটো এবং ফিটনেস বিহীন সিএনজি চালিত অটোরিকশা বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে । 

অবৈধ ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা রিকশার বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান চলছে। আর শহরে সিএনজি ও অবৈধ অটোরিকশার যত্রতত্র পার্কিং বন্ধে কঠোর অবস্থানে ট্রাফিক পুলিশ। 

তবে অভিযোগ রয়েছে পুলিশ ও রাজনৈতিক নেতাসহ এক বিশেষ শ্রেণীর পেশা লোকদের ম্যানেজ করে শহরে  দাপিয়ে বেড়াচ্ছে নিষিদ্ধ এসব ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা । এদের কারণে প্রতিদিনই ঘটছে নানা দুর্ঘটনা। 

অপরদিকে ব্যাটারিচালিত অটো ও রিক্সার কারণে বিদ্যুতের অবৈধ ব্যবহারও বাড়ছে। বৈদ্যুতিক মোটরচালিত এসব অটো ও রিক্সায় ব্যাটারির চার্জ দিতে গিয়ে অবৈধ বিদ্যুতের সংযোগও বাড়ছে। যার ফলে ঘটে অগ্নিসংযোগের মতো ঘটনা।

এবিষয়ে নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক পুলিশের টিআই (এডমিন) আব্দুল করিম বলেন, শহরের মধ্যে নিষিদ্ধ ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা, মিশুক ও  সিএনজি অটোরিকশা চলাচল করতে পারবে না। এগুলো শহরে প্রবেশ করলেই জব্দ করে ডাম্পিংয়ে পাঠানো হয়।  শহরকে যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশ কাজ করছে। 

তবে পুলিশের বক্তব্য এমন হলেও বাস্তব অবস্থা ভিন্ন। শহরের অধিকাংশ সড়কেই ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ও ফিটনেস বিহীন সিএনজি চালিত অটোরিকশা দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন । 

অভিযোগ রয়েছে, শহরের চাষাড়া, কালীরবাজার, দুই নং রেলগেইট, জিমখানা, নিতাইগঞ্জসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে লাইনম্যান দিয়ে ব্যাটারি রিক্সা চলাচল নিয়ন্ত্রণ করে থাকে।

অপরদিকে লক্ষ্য করা যায় ট্রাফিক পুলিশ কিছু সাধারন জনগনের গাড়ি আটক করলেও আটক করছে না স্টিকার লাগানো অটোরিকশা, মিশুক ও সিএনজি।