নারায়ণগঞ্জ টাইমস | Narayanganj Times

সোমবার,

২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

মিজমিজি পাইনাদী রেকমত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান

নারায়ণগঞ্জ টাইমস

প্রকাশিত:২৩:৪২, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

মিজমিজি পাইনাদী রেকমত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান

 সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পাইনাদী রেকমত আলী  উচ্চ বিদ্যালয়ের এস.এস.সি (সাধারণ) ৩২তম ও ভোকেশনাল ১৭তম পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা, মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকালে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে এ বিদায় সংবর্ধনা, বার্ষিক মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি এবং নাসিক ১নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর আব্দুর রহিম মেম্বারের সভাপতিত্বে এবং বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আলীর সার্বিক তত্ত্বাবধানে উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, নাসিক ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ্ব আনোয়ার ইসলাম।

উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন,  প্রতিষ্ঠাতা দাতা হাজী আহসানুল্লাহ, অভিভাবক সদস্য জালাল উদ্দিন, আব্দুস সামাদ বেপারী, আমির হোসেন, খোকন সরকার, নজরুল ইসালাম, এস এম মাসুদ রানা   ও অত্র বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী সহ অভিভাবকবৃদ্ধ প্রমূখ।

প্রধান অতিথি আনোয়ার ইসলাম শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আজকের বিদায় অনুষ্ঠান মূলত বিদায় নয়, এটা তোমাদের শিক্ষা ক্ষেত্রের একটি ধাপ অতিক্রম মাত্র।

 এখান থেকে তোমরা এস.এস.সি সম্পন্য করে বিভিন্ন সুনামধন্য কলেজে অধ্যায়ন করবে এবং আরো উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশ ও জাতির কল্যানে কাজ করবে। তবেই তোমাদের শিক্ষা অর্জনের সফলতা পাবে।

তিনি আরো বলেন, শুধু শিক্ষার সার্টিফিকেট অর্জনই নয়, বরং জ্ঞ্যান ও গুনের সমৃদ্ধিতে নিজেকে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তোলাই হচ্ছে শিক্ষার মূল আদর্শ। তাই নিজেকে আলোকিত করো  আলোকিত সমাজ গড়ো   ভালো মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে হবে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আলী  তাঁর বক্তব্যে বলেন, শিক্ষার্থীদের উজ্জল ভবিষ্যত ও সফলতা কামনা করে বলেন, আমাদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে প্রত্যেককেই আদর্শ ও সু- নাগরীক হিসেবে গড়ে তোলা। তাই আমি বিশ্বাস করি আগামীতে তোমরা সর্বোচ্চ সফতলা অর্জন করে এবং আলোকিত মানুষ হয়ে এই বিদ্যালয়ের সুনাম ও ঐতিহ্য ধরে রাখবে।

সভাপতির বক্তব্য আব্দুর রহিম বলেন নৈতিক শিক্ষা গ্রহন করতে হবে। ভালো মানুষ হতে হবে। ভালো মানুষ না হলে দেশ গড়া যাবেনা। পড়াশোনা হয়ে যাচ্ছে কর্মমূখী। এই জায়গা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। লেখাপড়া শেষ করে তুমি কি হবে সেটা তুমি ঠিক করবে।
তিনি আরো বলেন, আমরা স্মার্ট দেশ গড়তে চাচ্ছি, স্মার্ট নাগরিক করতে চাচ্ছি। তোমাদের মধ্যে সেই উন্নয়ণ আসতে হবে। আমরা মানবিক মানুষ হই, এলাকার মুরুব্বি ও শিক্ষকদের প্রতি শ্রদ্ধা রাখবো।
এবার অত্র বিদ্যালয়ের এস.এস.সি পরীক্ষার্থী ৩৫৯ জন ছাত্র-ছাত্রী এবং ভোকেশনাল ৩৫ জন ছাত্র-ছাত্রী, মোট ৩৯৪ জন ছাত্র-ছাত্রী পরীক্ষার্থী।

সম্পর্কিত বিষয়: