নারায়ণগঞ্জ টাইমস | Narayanganj Times

শনিবার,

০৪ ডিসেম্বর ২০২১

নারায়ণগঞ্জ পরিবহন শ্রমিকদের পথিকৃত 

আমিনুল ইসলামের ২৪তম মৃত্যু বার্ষিকী রোববার

নারায়ণগঞ্জ টাইমস:

প্রকাশিত:১৬:৫৮, ১৩ নভেম্বর ২০২১

আমিনুল ইসলামের ২৪তম মৃত্যু বার্ষিকী রোববার

স্বাধীনতার পরবর্তী কালে পরিবহণ শ্রমিকদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় পথিকৃত আলহাজ্ব আমিনুল ইসলামের ২৪তম মৃত্যুবার্ষিকী রবিবার (১৪ নভেম্বর) । এ উপলক্ষ্যে তার পরিবারের পক্ষ থেকে দিনব্যাপী কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে। কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে বাদ ফজর কোরআন খানি, কবর জিয়ারত, ফাতেহা পাঠ, বাদ যোহর মিলাদ ও দোয়া মাহফিল। এছাড়াও মরহুম আমিনুল ইসলাম স্মৃতি সংসদের পক্ষ থেকে বাদ আছর দেওভোগ শুকুর আলী জামে মসজিদ, ১নং বাবুরাইল জামে মসজিদ, হযরত মিন্নত আলী শাহ চিশতী (রঃ) জামে মসজিদ, আখড়া বাইতুল শরীফ জামে মসজিদ, সাকিম আলী জামে মসজিদ, দেওভোগ চেয়ারম্যান বাড়ী জামে মসজিদ ও কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল জামে মসজিদে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে।


মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে তাঁর জৈষ্ঠ পুত্র মোঃ শফিকুল ইসলাম লিটন সকলের নিকট তার পিতার আত্মার মাগফেরাতের জন্য দোয়া কামনা করেছেন।


মরহুম আমিনুল ইসলাম বাংলাদেশ বাস শ্রমিক সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি, নারায়ণগঞ্জ বাস শ্রমিক িসমিতির সাধারণ সম্পাদক, নারায়ণগঞ্জ ট্রাক চালক সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক, হযরত মিন্নত আলী শাহ চিশতি (র:) মসজিদ ও মাজার কমিটির সভাপতি ছাড়াও অসংখ্যক ধর্মীয়, মানব সেবা ও ক্রিড়া সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন। 


উল্লেখ্য, প্রয়াত শ্রমিক নেতা আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম এই অঞ্চলে শ্রমিকদের ন্যায়সঙ্গত অধিকার প্রতিষ্ঠায় কঠোর ও নিরলস চেষ্টা চালিয়ে সবার আস্থা অর্জন করেন। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে নারায়ণগঞ্জে পরিবহন শ্রমিকরা বিক্ষিপ্ত অবস্থায় ছিলেন। এজন্য তারা দিনমজুরের মতো আচরণের শিকার হতেন। আমিনুল ইসলাম এ সময় পরিবহন শ্রমিকদের সংগঠন গড়ে তুলে সবাইকে একত্রিত করেন। পরে শ্রমিকরা তাকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত অভিভাবকের মর্যাদায় আসীন রাখেন। এছাড়াও, নারায়ণগঞ্জের বেশ কয়েকটি লোডিং, আনলোডিং পয়েন্টে শ্রমিকদের সংগঠন গড়ে তোলেন। এ সকল সংগঠনের মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ ফার্টিলাইজার লোড আন লোড কোং এসোসিয়েশন, সমাজ শালিস, বিচার ও বিরোধ মিমাংশায় তার ভূমিকা ছিল প্রশংসনীয়। তিনি একজন ন্যায় বিচারক হিসেবে সুপরিচিত ছিলেন। মরহুম আমিনুল ইসলামই নারায়ণগঞ্জের প্রথম সুন্নতে খাতনা অনুষ্ঠানের প্রচলন করেন। এতিম, ছিন্নমূল ও অসচ্ছল পরিবারের শিশু কিশোরদের সুন্নতে খাতনার আয়োজন এখনো সবার মনে পড়ে। এছাড়াও বিয়ে, লেখাপড়া, চিকিৎসা, খেলাধূলাসহ নানা অনুষ্ঠানে তার সহযোগিতা ছিল সমাজ বিনির্মানের এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। যা আজও মানুষের
স্মৃতিতে অম্লান।