নারায়ণগঞ্জ টাইমস | Narayanganj Times

রোববার,

০৩ জুলাই ২০২২

সিদ্ধিরগঞ্জে বেপোরোয়া সজু বাহিনীর হামলায় প্রবাসীসহ আহত ৫

নারায়ণগঞ্জ টাইমস

প্রকাশিত:২২:৪০, ২৯ মে ২০২২

সিদ্ধিরগঞ্জে বেপোরোয়া সজু বাহিনীর হামলায় প্রবাসীসহ আহত ৫

সিদ্ধিরগঞ্জের কদমতলীতে বেপোরোয়া হয়ে উঠেছে সজু ও তার সন্ত্রাসীরা। আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সজু গড়ে তুলেছে সন্ত্রাসী বাহিনী। এ বাহিনীর নেতৃত্ব সজু নিজেই দিয়ে থাকেন। আধিপত্য ধরে রাখতে যে কোনো অপরাধ কর্মকান্ড করতে পিছপা হয়না এ বাহিনী। 


অভিযোগ রয়েছে সজু থানা পুলিশকে ম্যানেজ করেই এসব অপরাধ কর্মকান্ড করে যাচ্ছে। ভুমিদস্যুতাতেও পিছিয়ে নেই সজু। সম্প্রতি একটি জমিতে সাইনবোর্ড লাগিয়ে জমি দখলে যায় সজু ও তার বাহিনী। 


খবর পেয়ে ওই জমির মালিকপক্ষ জমির কাছে গেলে সজু ও তার বাহিনী হামলা চালিয়ে মারধর করে ইটালী প্রবাসীসহ ৫ জনকে মারধর করে। গত শনিবার রাতে নাসিক ৭ নং ওয়ার্ডের বাতান পাড়া এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। 


হামলায় আহতরা হলেন- নুরুউদ্দিন, ইটালি প্রবাসী দেলোয়ার, এস এম আমিনুল ইসলাম টুটুল ও আলতাফ।  এদের মধ্যে আলতাফের অবস্থা গুরুতর। তার মাথায় প্রচন্ড আঘাত লাগে। 


এঘটনায় শনিবার রাতেই ভুক্তভোগী বাদী হয়ে ভূমিদস্যু ও সন্ত্রাসী তানজিম কবির সজুকে প্রধান আসামী করে ৭ জনের নাম উল্লেখ করে আরও ১০/১২ জনকে অজ্ঞাত করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। 


অভিযুক্তরা হলেন- সিদ্ধিরগঞ্জের কদমতলী উত্তর পাড়া এলাকার মো. হুমায়ুন কবিরের ছেলে মো. তানজিম কাবর সজু (৩৫), মৃত. খালেক সরদারের ছেলে মো. মহাসীন (৩৫), মৃত. দেলোয়ার হোসেন দেলুর ছেলে মো. রনি (৪০), মো. সেলিম ও পাগলাবাড়ী এলাকার মো. মিলন (৩২), কুট্রি মিয়ার ছেলে মো. বাবু (৩০), ফরহাদ (৩৭) এবং বিল্লাল (৩২)। অভিযুক্তরা সকলেই ভূমিদস্যু ও সন্ত্রাসী সজু বাহিনীর সদস্য।


ভুক্তভোগী ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ভূক্তভোগী দীর্ঘদিন যাবৎ সিদ্ধিরগঞ্জের কদমতলী এলাকায় ওয়ারিশ সূত্রে ৫৮ শতক ডোবা জমি ভোগদখল করে আসছেন। সেখানে তিনি মাছ চাষ করেন। পরবর্তীতে উক্ত জমিতে অভিযুক্তরা গতকাল শনিবার রাতে ২০/২৫ জনের একটি সন্ত্রাসী বাহিনী দেশীয় অস্ত্র ও লাঠিসোঠা নিয়ে বেআইনী ভাবে আমার জমিতে জোর পূর্বক অভিযুক্ত সেলিম ও মিলনের নামে জমির মালিকানা লিখে একটি সাইনবোর্ড স্থাপন করেন। 


খবর পেয়ে ভুক্তভোগী আলতাফ হোসেনসহ তারা তিন ভাই ঘটনাস্থলে যায়। উক্ত জমিতে গিয়ে ভুক্তভোগীরা সাইনবোর্ড সম্বন্ধে জানতে চাইলে অভিযুক্তরা তদের উপর চড়াও হয়ে দেশীয় অস্ত্রসহ লাঠিসোঠা নিয়ে তাদের উপর অতর্কিত হামলা করে। 


এসময় সজু নিজেই নুরুউদ্দিন, ইটালি প্রবাসী দেলোয়ার, এস এম আমিনুল ইসলাম টুটুল ও আলতাফকে মারধর করে। সজুর এলোপাতাড়ী মারধরে ভুক্তভোগী আলতাফ হোসেন রক্তাক্ত জখম হয়। তখন সঙ্গে থাকা নগদ এক লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয় সন্ত্রাসী সজু বাহিনী। 


এ সময় আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে তারা আমাকে প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে পালিয়ে যায়।  স্থানীয়রা গুরুতর রক্তাক্ত জখম আলতাফ হোসেনকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠান। 


স্থানীয়রা জানান, সিদ্ধিরগঞ্জে দিন দিন বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সন্ত্রাসী সজু বাহিনী। সন্ত্রাসী ছাড়াও সজু রয়েছে কিশোর গ্যাং। এ বাহিনী নিয়ন্ত্রণ করেন নাসিক ৭ নং ওয়ার্ড এলাকা। তাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী। 


মাদক ব্যবসা, কিশোর গ্যাং, ভুমিদস্যুসহ বিভিন্ন অপকর্মের শেল্টারদাতা এই সজু। তার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিলেও নেওয়া হয়না কোন ব্যবস্থা। এলাকাবাসী এই সন্ত্রাসী বাহিনীর হাত থেকে মুক্তি চান।


এবিষয়ে জানতে সজুর মোবাইলে ফোন দিলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনীত সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এ সব ঘটনার সাথে আমি জড়িত নই। হামলার বিষয়ে আমি কোন কিছু জানিনা। এ জমি আমার না। আমাকে আলতাফ মামা ফোন দিলে আমি ঘটনাস্থলে যাই। 


সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মশিউর রহমান বলেন, কোনো অপরাধীকে ছাড় দেয়া হবেনা। কেউ আইনের উর্ধ্বে নয়। উভয় পক্ষকে থানায় ডেকে শান্তি শৃংখলা বজায় রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।