নারায়ণগঞ্জ টাইমস | Narayanganj Times

শুক্রবার,

২১ জুন ২০২৪

জিয়াউর রহমানের পরিবার এদেশের মানুষের জন্য অলংকার: আজাদ 

নারায়ণগঞ্জ টাইমস:

প্রকাশিত:২০:৩৭, ৮ জুন ২০২৪

জিয়াউর রহমানের পরিবার এদেশের মানুষের জন্য অলংকার: আজাদ 

বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সহ-সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ বলেন, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের পরিবার এদেশের মানুষের জন্য অলংকার। এই ফ্যামিলি এই দেশের মানুষের জন্য আশীর্বাদ।

বাঙালি জাতির জন্য এই পরিবার যা করেছে তা জাতি কখনো ভুলতে পারবেন না। এই যে অবৈধ শেখ হাসিনার সরকার দেশনায়ক তারেক রহমানের বিরুদ্ধে এ সকল উল্টাপাল্টা মামলা দিয়ে রেখেছেন। উনাকে কেনো দেশে আসতে দিচ্ছে না। কারন শেখ হাসিনার সরকার তারেক রহমানকে ভয় পায়।

শুনেন এভাবে আর কতদিন এই বাঙালি জাতি যুদ্ধ করা জাতি। ভাষা আন্দোলন করেছে স্বাধীনতা যুদ্ধ করেছে। যুদ্ধের মাধ্যমে দেশনায়ক তারেক রহমানকে এদেশের মাটিতে ফিরিয়ে আনব ইনশাল্লাহ। আর যুদ্ধ ঘোষণার মাধ্যমে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে মুক্ত করে আনব ইনশাল্লাহ। 

শনিবার (৮ জুন) দুপুরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে ফতুল্লা ইউনিয়ন বিএনপির উদ্যোগে আলোচনা ,দোয়া মাহফিল ও খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা গুলো বলেন।

 

তিনি বলেন, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের অবদান বলে শেষ করা যাবে না। কিন্তু সেই ব্যক্তিকে নিয়ে উল্টাপাল্টা কথা বলার চেষ্টা করা হয়। ইতিহাসকে বিকৃতি করার চেষ্টা করা হয়। এটা কি উচিত আপনারা বলুন। আমাদের যদি মিনিমাম লজ্জাবোধ ও কৃতজ্ঞতা থাকে বাঙালি জাতি হিসেবে তাহলে সেটা কিন্তু করা উঠিত না।

আমাদের নেত্রীকে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া উনি আপনাদের জন্য কি কি করেছেন তা আপনারা কিন্তু জানেন। উনি শেষ পর্যন্ত এদেশের জন্য আন্দোলন যুদ্ধ করে ওনার এক সন্তানকে হারিয়েছেন। আরেক সন্তানকে কাছে পাচ্ছেন না উনাকে ফখরুদ্দিন মইনুদ্দিন সরকার নির্মল ভাবে অত্যাচার করে তা আপনারা সবাই জানেন।

তোমার মেরুদন্ড ভেঙ্গে দেয়া হয়েছিল। দেশনায়ক তারেক রহমানের উপর এত অত্যাচার কেন হয়েছিল তা আপনারা জানেন কারণ তিনি এদেশের মানুষকে ভালোবেসে ছিলেন। এদেশের মানুষের গণতন্ত্র ও ভোটের অধিকার রক্ষা করতে চায়। তারেক রহমান এদেশের মানুষের মঙ্গলের জন্য কাজ করে এবং সত্য কথা বলেন। তারই জন্য সেই মইনুদ্দিন ফখরুদ্দিনের সরকার দেশনায়ক তারেক রহমানকে শেষ করে দিতে চেয়েছিল।

এত অত্যাচার করেও কিন্তু দেশের প্রতি ভালোবাসা থেকে তারেক রহমানকে তারা দূরে সরিয়ে দিতে পারেননি কারণ এদেশের মানুষের দোয়া ওনার প্রতি আছে। কারণ তারেক রহমানকে দেশের মানুষ মনেপ্রাণে ভালোবাসেন নামাজেও তার জন্য দোয়া করেন। দোয়া করে কারণ তারেক রহমান এদেশের মানুষের অধিকার রক্ষা করার জন্য যুদ্ধ করছেন। 

তিনি আরও বলেন, এদেশের মানুষের জন্য গণতন্ত্রের আন্দোলনের জন্য ডাক দিয়েছেন কে দেশ নায়ক তারেক রহমান। সেই আন্দোলনে আপনারা সবাই থাকবেন তো। ইনশাআল্লাহ বেশ কয়েক তারেক রহমানের সে ডাকে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে ফ্যাসিবাদী সরকারের বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারের পতন ঘটাবো ইনশাল্লাহ।

আর এদেশের প্রধানমন্ত্রী হবে দেশ নায়ক তারেক রহমান। দেশনায়ক তারেক রহমানের নেতৃত্বে সেই গণতান্ত্রিক আন্দোলনে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের সকল নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাজপথে থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। 

এসময়ে বিএনপি'র প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান এবং  আরাফাত রহমান কোকোর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি ও সুস্থতা এবং বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সু-স্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু এবং বিএনপির সকল নেতাকর্মীদের সুস্থতা ও দেশবাসীর মঙ্গল কামনা করে মোনাজাত পরিচালনা করা হয়। পরে সকলের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়।

ফতুল্লা ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি হাসান মাহমুদ পলাশের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. আলমগীর হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব এড. আবু আল ইউসুফ খান টিপু, প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ফতুল্লা থানা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি হাজী সুলতান মাহমুদ মোল্লা, বিশেষ বক্তা ফতুল্লা থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এড. আব্দুল বারী ভূঁইয়া, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মাশুকুল ইসলাম রাজিব, মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ফতেহ রেজা রিপন, ফতুল্লা থানা বিএনপির সাবেক সভাপতি অধ্যাপক খন্দকার মনিরুল ইসলাম, নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের আহ্বায়ক সাদেকুর রহমান সাদেক, মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম সজল, ফতুল্লা থানা বিএনপির সহ-সভাপতি হাজী মো. শহিদুল্লাহ, লোকমান হোসেন, আলাউদ্দিন খন্দকার শিপন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এড. খন্দকার মো. আক্তার হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক হাসান আলী, কাশিপুর ইসলাম বিএনপির সভাপতি মঈনুল হোসেন রতন, কুতুবপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি বিল্লাল হোসেন, এনায়েতনগর ইউনিয়ন বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহাদাত হোসেন শাহাদুল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান সুমন, ফতুল্লা থানা যুবদলের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক ইসমাইল খান।

 

সম্পর্কিত বিষয়: