নারায়ণগঞ্জ টাইমস | Narayanganj Times

বুধবার,

২৯ মে ২০২৪

বন্দরে মোরগের কণ্ঠে ‘আল্লাহ আল্লাহ’ ডাক, দেখতে মানুষের ভীড় (ভিডিও)

নারায়ণগঞ্জ টাইমস

প্রকাশিত:২১:৪২, ১১ মে ২০২৪

আমরা অনেকেই জানি টিয়া পাখি, ময়না পাখি, তোতা পাখি মানুষের কণ্ঠে কথা বলতে পারে, মানুষের নাম ধরে ডাকে। কিন্তু কখনো কি শুনেছি মোরগের কণ্ঠে মানুষের মত ডাক ? 

এমন ঘটনা অবিশ্বাস্য মনে হলেও সত্যি। তবে মানুষের নাম ধরে না ডেকে মোরগটি ডাকছে মহান সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর নাম ধরে। এ ঘটনায় সকল শ্রেণীর মানুষের মধ্যে ব্যাপক কৌতুহল ও সাড়া জাগিয়েছে। মোরগটিকে একনজর দেখতে দূর-দূরান্ত থেকে অনেক লোক ছুটে এসে ভীড় করছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দরের ২৩নং ওয়ার্ডে স্বল্পেরচক এলাকার ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আসিফ প্রধানের বড় ভাই আনিসুজ্জামান আনিসের বাড়িতে। তাদের দাবি এটি সৃষ্টিকর্তার বিশেষ কুদরত।

শনিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, আনিসুজ্জামান আনিসের বাড়িতে দূর-দূরান্ত হতে ছুটে আসা অনেক লোক ভিড় জমিয়েছে। মোরগের কণ্ঠে শোনা যাচ্ছে ‘আল্লাহর’ নাম। মোরগটি বারবার শুধু আল্লাহর নাম ধরেই ডাকছে। 

জানা গেছে, দেশি ওই মোরগটি খাওয়ার জন্য কিনেছিলেন আনিসুজ্জামান আনিস। রান্নার জন্য স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে মোরগটি জবাইয়ের প্রস্তুতিও নিয়েছিলেন। ঠিক তখনই মোরগের কণ্ঠে আকস্মিক শোনা যায় ‘আল্লাহ, আল্লাহ’ ডাক। মোরগের ডাক শুনে অবাক হন মোরগের মালিক আনিস ও তার স্ত্রী।

মোরগটির ক্রেতা আনিসুজ্জামান আনিস জানান, বৃহষ্পতিবার (৯ মে) তার বাড়ির সামনে এক ব্যক্তি ৪-৫টি মোরগ-মুরগি বিক্রি করছিলেন। তা দেখে মোরগটি দামাদামি করে ৬০০ টাকায় কেনেন তিনি। ওই দিন বিকেলের দিকে মোরগটি স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে জবাই করতে গেলে ঠিক তখনই ‘আল্লাহ আল্লাহ’ বলে ডেকে ওঠে। 

তখন থেকে অনেকক্ষণ মোরগটি ‘আল্লাহর নাম’ ধরে ডেকেছে। প্রথমবার জবাই না করে পরে রাতে আবারও নিয়ে যান আনিস। তখনও একইভাবে মোরগটি অনেকক্ষণ ধরে ‘আল্লাহর’ নাম ধরে ডাকতে থাকে। যেহেতু মোরগটি ‘আল্লাহর’ নাম ধরে ডাকছে তাই সেটি লালন পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আনিস। এ মোরগ বিক্রি বা জবাই করবো না। যে কয়দিন বাঁচে এভাবেই থাকবে।

এ ব্যাপারে আসিফ প্রধান জানান, গত পরশুদিন আমার বড় ভাই আনিছুল মোরগটি রাস্তায় এক মুরগীওয়ালার কাছ থেকে ৬শ টাকা দিয়ে খাওয়ার উদ্দেশ্যে তার কাছ থেকে কিনে নেন। কেনার পর মোরগটিকে জবাই করতে নেন, ঠিক তখনই উচ্চস্বরে আল্লাহ আল্লাহ বলে ডাকতে থাকে।

অবাক হয়ে মোরগটি আমার ভাই ও ভাবী জবাই না করে আল্লাহর নামে লালন পালনের জন্য আমার ফার্মবাড়িতে দিয়ে দেন। ‘এটি আল্লাহ আমার ভাইয়ের ওছিলায় আমার হেফাজতে দিয়েছেন। এখন থেকে আমি এই মোরগটি যত্ন করে লালন পালন করব।’

স্বল্পেরচক বায়তুল নুর জামে মসজিদের ঈমাম ও খতিব হাফেজ মাওলানা আবু সাঈদ বলেন, আল্লাহর নিয়ামক হিসেবে মোরগটি কণ্ঠে বারবার আল্লাহর নাম নিচ্ছে। সেহেতু এটা লালন পালন করাই সওয়াবের কাজ হবে।
 

সম্পর্কিত বিষয়: