নারায়ণগঞ্জ টাইমস | Narayanganj Times

সোমবার,

০২ আগস্ট ২০২১

সিদ্ধিরগঞ্জে যুবকের মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজাল

নারায়ণগঞ্জ টাইমস

প্রকাশিত:০০:৫৮, ১৯ জুন ২০২১

সিদ্ধিরগঞ্জে যুবকের মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজাল

সিদ্ধিরগঞ্জে মাহমুদুল হাসান বাবু (৩৫) নামে এক যুবকের মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজাল তৈরী হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে মিজমিজি সিআইখোলা এলাকায় অলি উল্লাহ (অলি) এর ভাড়াটিয়া বাড়িতে বৃহস্পতিবার বিকেলে।

পরিবারের সদস্যরা যুবকের মৃত্যুকে প্রথমে অস্বাভাবিক মৃত্যু বললেও পরে রহস্যজনক কারণে এটি স্বাভাবিক মৃত্যু বলে জানান। এবং তড়িঘড়ি করে পাইনাদি গোরস্থানে লাশ দাফন করায় বিষয়টি নিয়ে বেশ রহস্যের সৃষ্টি হয়। 


এদিকে একটি সূত্র জানায়, নিহত যুবক বাড়িওয়ালা অলি উল্লাহর মোবাইল চুরি করেছে এমন অভিযোগে তাকে মারধর করা হয়। এরপরই ওই যুবকের মৃত্যু হয়।


অপরদিকে মধ্যরাতে মাহমুদুল হাসান বাবুকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে এমন অভিযোগ দিয়ে মধ্যরাতে পুলিশের ‘৯৯৯’ এ ফোন করেন জনৈক ব্যক্তি। ফোন পেয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ফয়সাল (২) ঘটনাস্থলে ছুটে যান। কিন্তু এর আগেই লাশ দাফন সম্পন্ন হয়ে যায়। 


তড়িঘড়ি করে লাশ দাফনের বিষয়টি জানতে চাইলে নিহতের পরিবারের সদস্যরা উপপরিদর্শক (এসআই) ফয়সাল (২) কে জানান, আমাদের কোনো অভিযোগ নেই। বাবু এমনিতেই স্ট্রোক করে মারা গেছে। 


এ বিষয়ে জানতে উপপরিদর্শক (এসআই) ফয়সাল (২) এর সাথে কথা হয়। তিনি বলেন, আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে ‘৯৯৯’ এর সূত্রধরে মৃত্যুর কারণ জানতে চাইলে নিহতের স্বজনরা উত্তেজিত হয়ে উঠে। বাবু স্বাভাবিকভাবেই মারা গেছেন বলে তারা দাবি করেন। 


এছাড়াও বাড়িওয়ালা অলি উল্লাহর সাথে কথা হলে তিনি জানান তিনি এ ঘটনার সময় এলাকায় ছিলেন না ঢাকা ছিলেন। 
তিনি আরো জানান, যে নাম্বারটি দিয়ে ‘৯৯৯’ এ ফোন করা হয়েছে তা বন্ধ পাওয়া গেছে। 


এদিকে অলি উল্লাহ (অলি) এ প্রতিবেদককে জানান, তিনি বিকেলের দিকে মিজিমিজি এলাকায় একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যান। সেখানে তিনি থাকা অবস্থায় রাত ১২ টার দিকে ফোন পান বাবু মারা গেছে। রাত আড়াইটার দিকে বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে তিনি বাসায় ফিরেন। 


‘৯৯৯’এ তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার এক আত্নীয় গ্যাস কামাল এ অভিযোগটি করেছেন যা সঠিক নয়। তার সাথে কামালের জমিজামা নিয়ে দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছে। যে নাম্বারটি দিয়ে ‘৯৯৯’এ ফোন করা হয়েছে সেই নাম্বারটি গ্যাস কামালের। 


জানাগেছে, নিহত মাহমুদুল হাসান বাবু (৩৫) মাদকাসক্ত যুবক ছিলো। মাদকাসক্তের কারণে তার স্ত্রীও তাকে ছেড়ে চলে যায়। এবং নেশার টাকার জন্য সে বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ড করে থাকতো।

 

এক পর্যায়ে তাকে পরিবারের সদস্যরা ঘরের মধ্যে আটকিয়ে রাখতো। ঘটনার দিন নিহতের বাসায় কেউ ছিলোনা। সন্ধ্যায় মা বাসায় এসে দেখতে পান ঘরের দরজা খোলা। তার ছেলের নিথর দেহ চেয়ারের মধ্যে পড়ে আছে। 


এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মশিউর রহমান পিপিএম-বার জানান, ‘৯৯৯’ এর মাধ্যমে পাওয়া অভিযোগের কোন সত্যতা পাওয়া যায়নি। মাহমুদুল হাসান বাবুর মৃত্যু নিয়ে তার পরিবারের কেউ কোনো অভিযোগও করেনি। 
 

সম্পর্কিত বিষয়: