নারায়ণগঞ্জ টাইমস | Narayanganj Times

মঙ্গলবার,

২৮ মে ২০২৪

বিএনপির নাম ভাঙিয়ে আবারও চেয়ারম্যান হতে চায় তাঁরা : সাখাওয়াত

নারায়ণগঞ্জ টাইমস

প্রকাশিত:২০:২২, ১৩ মার্চ ২০২৪

বিএনপির নাম ভাঙিয়ে আবারও চেয়ারম্যান হতে চায় তাঁরা : সাখাওয়াত

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক এড. সাখাওয়াত হোসেন খান বলেছেন, আজকে তারা চেয়ারম্যানি করতে চায় বিএনপি করে অথচ নৌকার ফুল দিয়ে বরণ করেন আওয়ামীলীগকে। তাঁরা বিএনপির নাম ভাঙিয়ে আবারও চেয়ারম্যান হতে চায়। আর আওয়ামী লীগের সাথে আঁতাত করে রাজনীতি করে। 

আজকে তারা যদি আবারও বিএনপি সেজে ভোট চায় নেতাকর্মীদের কাছ থেকে তাদেরকে আপনারা ভোট দিবেন না। আওয়ামী লীগ একটি বড় দল বিএনপি একটি বড় দল আওয়ামী লীগের সাথে বিএনপির বোঝাপড়া হতে পারে কিন্তু যারা মুনাফেক, দলের সাথে বেইমানি করে দলের তাদের কোনো সম্পর্ক নেই।

তাঁরা দলের নির্বাচিত হয়ে দলের বিরুদ্ধে কাজ করে, তাদেরকে এই দলের নেতাকর্মীরা ভোট দিতে কেন্দ্রে যেতে পারে না।  

বিএনপির চেয়ারপার্সন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি ও সুস্থতা কামনায় নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি বন্দর উপজেলা বিএনপির আওতাধীন মদনপুর বিএনপির ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা গুলো বলেন। 

বুধবার (১৩ মার্চ) বাদ আছর বন্দর উপজেলাধীন মদনপুর ইউনিয়নের দেওয়ানভাগে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। 

এসময়ে ইফতার আগ মুহূর্তে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সু-স্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু এবং  বিএনপির সকল নেতাকর্মীদের সুস্থতা ও দেশবাসীর মঙ্গল কামনা করে মোনাজাত পরিচালনা করা হয়। 

তিনি বলেন, আজকে আপনাদের একটা মেসেজ দিতে চাই আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে বিএনপির কোনো প্রার্থী নাই। কেউ যদি এসে বিএনপির নামে ভোট চায় আপনারা তাদেরকে ভোট দিবেন না।

তাদেরকে বলবেন আপনারা দলের সাথে ছিলেন না দল আপনাদের সাথে নেই। বরং তাদেরকে লাল কার্ড দেখিয়ে দিবেন। আমাদেরকে কেন্দ্র থেকে বলা হয়েছে উপজেলা নির্বাচন বর্জন করার জন্য। 

যেহেতু আমরা এ নির্বাচন কমিশনের অধীনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অংশগ্রহণ করেনি সুতরাং আমরাই উপজেলা নির্বাচন অংশগ্রহণ করব না।

এটি দলের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত এই সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে কেউ প্রার্থী হলে বা কাউকে সমর্থন করলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থার নেওয়ার পাশাপাশি দল থেকে বহিষ্কার করা হবে। 

তিনি আরও বলেন, আমরা মাঠে আছি এদেশের মানুষের গণতান্ত্রিক যে ভোটের অধিকার তা প্রতিষ্ঠা করার জন্য। এ সরকার ডাকাত সরকার। আপনারা জানেন এ সরকার মানুষের ভোটের অধিকার হরণ করেছে। তারা ১৭বছর ধরে ক্ষমতায় থেকে সে ৭৫ সালের মতন তলা বিহীন ঝুড়িতে পরিণত করেছেন। 

তারা ক্ষমতায় থেকে দুর্নীতি ও লুটপাট এর মাধ্যমে এদেশের মানুষের হাজার হাজার কোটি টাকার মালিক হয়েছেন এবং সেই টাকা বিদেশে পাচার করেছে। আওয়ামী লীগের এমপি মন্ত্রী ও নেতাদের পরিবার দেশে নাই তাদের পরিবার বিদেশে। 

তারা বিদেশের বিভিন্ন বেগম পাড়ার বাড়ি রয়েছে । দেশে আজকে ডলার সংকট দেশে কোন ডলার নেই। দেশের মানুষ দুর্ভিক্ষের মধ্যে রয়েছে। দেশের অর্থনতিকে ধ্বংস করে দিয়েছে। আজকে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে রমজান মাসও মানুষ ঠিকমতন বাজার করে খেতে পারেন এবং রোজা রাখতেও পারে না। 

দেশের এ অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য আমাদের দুর্বার আন্দোলনের প্রয়োজন। আপনাদেরকে ধন্যবাদ গত সাত তারিখে ভোট কেন্দ্রে না গিয়ে এই সরকারকে লাল কার্ড দেখিয়ে দিয়েছেন। রাজপথে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে এই সরকারকে বিদায় করতে হবে। 

তা না হলে সেই দিন আর বেশি দূর নয় আমাদেরকে দু'শত টাকা কেজিও চাল খেতে হবে। এমন অবস্থা যদি তৈরি হয় তাহলে এদেশের মানুষ বাঁচবে না না খেয়ে অনাহারে থাকতে হবে।

আজকে মানুষ বাজারে গেলে কাঁদে কিসের জন্য কাঁদে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে। সকল উত্তোলনের জন্য এই সরকারের পতন ঘটাতে হবে। 

আগামী দিনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আমাদের রাজনৈতিক অভিভাবক জননেতা তারেক রহমান যে আন্দোলন সংগ্রামের ডাক দিবেন সে আন্দোলন সংগ্রামের সকলকে শামিল হতে হবে। 

তিনি আরও বলেন, আপনারা জানেন গত ২৮শে অক্টোবর যে আন্দোলনের সূচনা হয়েছিল সে আন্দোলনের ঢেউ কিন্তু নারায়ণগঞ্জ লেগেছিল। কিন্তু মহানগর বিএনপির কিছু সুবিধাবাদী নেতা আমাদেরকে পিঠে থেকে ছুরিঘাত করেছেন। 

তারা মুখে মুখে বিএনপি করবে অন্তরে আওয়ামী লীগকে পোষবে। তার আওয়ামী লীগের সাথে হঠাৎ করে বিএনপি'র আন্দোলনকে ধুলিস্যাৎ করতে চেয়েছিল।

গত সাত জানুয়ারির নির্বাচনে বিএনপি কিন্তু নির্বাচনে যায়নি কিন্তু অথচ কিছু দালাল তারা সাত জানুয়ারি নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার জন্য ও নেতাকর্মীদেরকে নেওয়ার জন্য চেষ্টা করেছিল।

মদনপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আল মামুন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির আহবায়ক এড. সাখাওয়াত হোসেন খান, প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব এড. আবু আল ইউসুফ খান টিপু, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আবু ফতেহ রেজা রিপন, বন্দর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মাজহারুল ইসলাম হিরণ, সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ লিটন, নারায়ণগঞ্জ সদর থানা বিএনপির সভাপতি মাসুদ রানা, সাধারণ সম্পাদক এড. এইচ এম আনোয়ার প্রধান, বন্দর উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি মহি উদ্দিন শিশির। 

এছাড়াও আরও উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ সদর থানা বিএনপির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক শেখ সেলিম আহমেদ, আলমগীর হোসেন চঞ্চল, মাকিত মোস্তাকিম শিপলু, কলাগাছিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি শাহাদুল্লাহ মুকুল, মদনপুর ইউনিয়ন বিএনপির সিনিয়র সভাপতি মো. শাহজাহান, সাধারণ সম্পাদক শাহিন শাহ্ মিঠু, সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল হক, মুছাপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহিন আহমেদ, ধামগড় ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি জাহিদ খন্দকার, বন্দর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি রাজু আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা, বন্দর উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি সাকিব রাইয়্যানসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।