নারায়ণগঞ্জ টাইমস | Narayanganj Times

মঙ্গলবার,

১৮ জানুয়ারি ২০২২

এবারও ১৭ নং ওয়ার্ডে আলোচনায় কাউন্সিলর বাবু

নারায়ণগঞ্জ টাইমস:

প্রকাশিত:২২:২৬, ২ ডিসেম্বর ২০২১

এবারও ১৭ নং ওয়ার্ডে আলোচনায় কাউন্সিলর বাবু

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ১৬ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচন। নির্বাচন ঘিরে ২৭টি ওয়ার্ডে সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীরা গণসংযোগ শুরু করে দিয়েছেন। উঠান বৈঠক, নির্বাচনী সভাসহ নানা ভাবে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছেন তারা। উন্নয়নের নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন। ভোটাররাও প্রার্থীদের নিয়ে নানা আলোচনা করছেন। কে যোগ্য, কাকে ভোট দিবেন, শেষ পর্যন্ত কার কার মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে এমন নানা আলোচনা চায়ের টেবিল থেকে শুরু করে সর্বত্র। এর অংশ হিসেবে ১৭ নং ওয়ার্ডে আবারো আলোচনার শীর্ষে বর্তমান কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু। গত ৫ বছর তার কাজের উপর শতভাগ সন্তুষ্টি প্রকাশ করছেন ওয়ার্ডের বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ। তারা বলছেন, সিটি করপোরেশনের বাইরেও কাউন্সিরর বাবু নিজের অর্থায়নে নানা উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন। গরীব-অসহায় মানুষকে সহায়তা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ মাদ্রাসায় অনুদান, বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা, ঈদ সামগ্রী ও শীত বস্ত্র বিতরণ, ড্রেন পরিস্কার, এলাকায় আলোক সজ্জা, কবরস্থানের সৌন্দয্যবর্ধন, খেলাধূলায় সহায়তা, শিক্ষা উপকরন বিতরণ, খামার থেকে মাছ বিতরণসহ নানা সেবামূলক কাজ করেছেন ব্যক্তিগত অর্থায়নে। এছাড়া প্রাণঘাতি করোনামহামারিতে তার নানা কার্যক্রম প্রসংশিত হয়েছে সর্বত্র। এক পর্যায়ে খাদ্যের ফেরীওয়ালা উপাধী পেয়েছেন তিনি। এছাড়াও দলমত নির্বিশেষে ওয়ার্ডের মানুষের কাছে একজন মানবিক জনপ্রতিনিধি হয়ে উঠেছেন আব্দুল করিম বাবু। গণসংযোগে ওয়ার্ডের যেখানেই যাচ্ছেন সেখানেই মানুষের ঢল নামছে। উঠান বৈঠনের আয়োজন করা হলেও বিপুল সংখ্যক নারী-পুরুষের উপস্থিতিতে তা জনসভায় পরিনত হয়ে যায়। এর একটাই কারণ কাজের মাধ্যমে মানুষের ভালোবাসা অর্জন করেছেন কাউন্সিলর বাবু।


ওয়ার্ডের লোকজনের সাথে কথা বলে ও বিভিন্ন তথ্যমতে কাউন্সিলর বাবুর কিছু কার্যক্রমের চিত্র পাওয়া গেছে। যা এখানে তুলে ধরা হলো-প্রাণঘাতি করোনা মহামারিতে এলাকার মোড়ে মোড়ে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণসহ নানা কর্মসূচি পালন করেছেন কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু। এসময় প্রতিদিন নিজস্ব অর্থায়নে ওয়ার্ডের অলিগলিতে জীবননাশক পানি ছিটানোর পাশাপাশি ৫০ হাজার হ্যান্ড স্যানিটোইজেশন ও ৬০ হাজার মাক্স বিতরণ করেছেন তিনি। লকডাউনের কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের মাঝে নিজস্ব উদ্যোগে ১৪ ধাপে ৩২ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিয়েছেন তিনি। এ জন্য ওয়ার্ডবাসী তাকে খাদ্যের ফেরীওয়ালা উপাধি দিয়েছেন।


দীর্ঘ ১০ বছর ধরে কাউন্সিলর বাবু নিজস্ব অর্থায়নে বিশুব্ধ পানি সরবরাহ করে আসছেন। এজন্য পর্যায়ক্রমে তিনি ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের জন্য নিজস্ব অর্থায়নে ১১টি ডিপ টিউবওয়েল বসিয়ে দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, এই ডিপ টিউবওয়েলের জন্য একজন করে অপারেটর নিয়োগ করে তাদের বেতন ও বিদ্যুৎ বিল নিজেই পরিশোধ করছেন। এলাকার বিভিন্ন রাস্তায় বৈদ্যুতিক বাতির ব্যবস্থা করেছেন। এবং বিদ্যুৎ বিল নিজেই পরিশোধ করছেন কাউন্সিলর বাবু। ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকার ড্রেন পরিস্কার রাখার দায়িত্ব সিটি করপোরেশনের। কিন্তু তিনি নিজস্ব অর্থায়নে প্রতিমাসে ড্রেন পরিস্কার করাচ্ছেন এবং পরিচ্ছন্নকর্মীদের বিল নিজেই পরিশোধ করে আসছেন।


এছাড়া প্রতি ঈদে ১২ হাজার পরিবারকে ঈদ সামগ্রী এবং কোরবানীর ঈদে মাংস বিতরণ করে আসছেন তিনি। নিজস্ব অর্থায়নে খামারে মাছ চাষ করে সেই মাছ ওয়ার্ডের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের মাঝে বিতরণ করছেন দীর্ঘদিন ধরে। প্রতি শীত মৌসুমে কম্বল বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন। এবারও ১২ হাজার কম্বল বিতরণ করেছেন। পাইকপাড়ায় দুটি (বড়-ছোট) কবরস্থানের সৌন্দয্যবর্ধণ করেছেন নিজস্ব অর্থায়নে। এলাকার নানা সমস্যা সমাধানে শালিস বৈঠকের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। এবং এই শালিস বৈঠক সম্পন্ন করতে অর্থের ব্যবস্থাও তিনি করছেন।


শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও মসজিদ মাদ্রাসায় আর্থিক অনুদান, গরীব অসহায় মেয়ের বিয়েতে আর্থিক সহায়তা, ওয়াজ-মাহফিলে আর্থিক সহায়তা, যুবকদের খেলাধূলায় উৎসাহ দিতে সহায়তা, এবং গরীব ও অসহায় শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাউপকরণ বিতরণ এবং অর্থের অভাবে যাতে তাদের শিক্ষাজীবন বন্ধ হয়ে না যায় তার ব্যবস্থা করে আসছেন। মোটকথা কার কাছ থেকে কেউ খালি হাতে ফিরে যায়নি। সাধ্যমত তিনি সাহায্য-সহযোগিতা করে আসছেন। যার কারণে ওয়ার্ডবাসীর কাছে একজন মানবিক জনপ্রতিনিধি হয়ে উঠেছেন আব্দুল করিম বাবু। এই মানবিক মানুষকে তার কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ওয়ার্ডে মানুষ ২০১৬ সালের নির্বাচনে সর্বোচ্চ ভোটে বিজয়ী করেছেন। এবারও জনপ্রিয়তার শীর্ষে অবস্থান করছেন তিনি। যার প্রমান পাওয়া গেছে ওয়ার্ডের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের সাথে কথা বলে। তারা বলেন, বর্তমান সময়ে ওয়ার্ডের উন্নয়ন এবং গরীব-দু:খী মানুষের প্রকৃত বন্ধু কাউন্সিলর বাবু। তিনি উন্নয়নের পাশাপাশি যেভাবে মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন বিগত বছরগুলোতে সেটা আর কখনো দেখা যায়নি। আমরা মনে করি আগামী দিনে এই ওয়ার্ডের নেতৃত্বের জন্য বর্তমান কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু যোগ্য ব্যক্তি। তার বিকল্প নাই।