নারায়ণগঞ্জ টাইমস | Narayanganj Times

মঙ্গলবার,

২৮ মে ২০২৪

কেউ সরকারি দলের সাথে আঁতাত করে বেইমানি করবেন না : টিপু 

নারায়ণগঞ্জ টাইমস

প্রকাশিত:২০:২০, ২০ মার্চ ২০২৪

কেউ সরকারি দলের সাথে আঁতাত করে বেইমানি করবেন না : টিপু 

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব এড. আবু আল ইউসুফ খান টিপু বলেছেন, শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের মানুষকে ভালোবাসে না। বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় বিশ্বাস করে না। তারা মুসলমানকে ভালোবাসে না, তারা মুসলমানদের উপর আঘাত আনতে চায়। 

তারা অর্পিত সম্পত্তি দখল করতে চায়। তারা বাংলাদেশের দুর্ভিক্ষ সৃষ্টি করতে চায়। তারা বাংলাদেশের ব্যাংকের টাকা রিজার্ভ ফান্ড চুরি করে বিদেশে পাচার করতে পছন্দ করে। তারা গণতন্ত্র, স্বাধীনতা ও সংবাদপত্রের স্বাধীনতা বিশ্বাস করে না। তারা তত্ত্বাবধানের অধীনে নির্বাচন কেউ বিশ্বাস করে না। তারা শুধু চায় ডামি নির্বাচন।

বিএনপির চেয়ারপার্সন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি ও সুস্থতা কামনায় নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি বন্দর উপজেলা বিএনপির আওতাধীন ধামগড় ইউনিয়ন বিএনপির ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্যে রাখতে গিয়ে তিনি এসব কথা গুলো বলেন।

বুধবার (২০ মার্চ) বাদ আছর বন্দর উপজেলাধীন ধামগড় ইউনিয়নে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

তিনি আরও বলেন, তারা জিয়া পরিবারকে ভয় পায়। তারা বিএনপির চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জননেতা তারেক রহমানকে ভয় পায়। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান একজন বীর উত্তম বী মুক্তিযোদ্ধা এবং স্বাধীনতার ঘোষক। 

১৯৭১ সালে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে নিজ হাতে অস্ত্র নিয়ে ওই প্রশ্চিমা শাসক গোষ্ঠীর হাত থেকে দীর্ঘ মাস যুদ্ধ করে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছিল। শেখ মুজিব আত্মসর্পনের নামে গ্রেপ্তার নাটক সাজিয়ে পাকিস্তান গিয়ে বসেছিলেন। 

আর পাকিস্তান থেকে যখন তিনি মুক্তি পেলেন তিনি সরাসরি কিন্তু বাংলাদেশে আসেন নাই । তিনি চলে গেলেন লন্ডন তারপর ভারত হয়ে বাংলাদেশে আসেন। এর মধ্যে উনি কি করেছেন তা আপনারা সবই জানেন।

তিনি বলেন আরও বলেন, আমাদের রাজনৈতিক অভিভাবক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জননেতা তারেক রহমান এই ফ্যাসিবাদি শেখ হাসিনার সরকারের বিরুদ্ধে এবং তাদের সকল অন্যায় অত্যাচারের বিরুদ্ধে বার বার আন্দোলন সংগ্রামের ডাক দিচ্ছেন। আমরা তার ডাকে রাজপথে ছিলাম আছি এবং থাকবো।

পবিত্র ঈদুল ফিতরের পরে আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জননেতা তারেক রহমান চূড়ান্ত আন্দোলনের ডাক দিবেন। যদি আপনারা রাজপথে থাকেন তবে ইনশাআল্লাহ এই ফ্যাসিবাদি শেখ হাসিনা সরকারের পতন হবেই হবে। আপনারা শুধু খালি প্রস্তুত থাকবেন আপনারা কেউ সরকারি দলের সাথে আঁতাত ও দলের সাথে বেইমানি করবেন না।


ধামগড় ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি জাহিদ খন্দকারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. মহসিন সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির আহবায়ক এড. সাখাওয়াত হোসেন খান, প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব এড. আবু আল ইউসুফ খান টিপু, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আবু ফতেহ রেজা রিপন, মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম সজল, বন্দর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মাজহারুল ইসলাম হিরণ, সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ লিটন, নারায়ণগঞ্জ সদর থানা বিএনপির সভাপতি মাসুদ রানা, বন্দর উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি মহি উদ্দিন শিশির।

এছাড়াও আরও উপস্থিত ছিলেন, মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য শাহিন আহমেদ, মাকিত মোস্তাকিম শিপলু, হুমায়ূন কবির,বন্দর উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক তাওলাদ হোসেন, বিএনপি নেতা আবুল হোসেন রিপন, ইকবাল হোসেন, সোহেল খান বাবু, ডা. নজরুল ইসলাম, মদনপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহিন শাহ্ মিঠু, বন্দর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি মো. রাজু আহমেদে, সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা, মুছাপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রহিম,বন্দর উপজেলা যুবদল নেতা ওদুদ সাগর,বন্দর উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি সাকিব রাইয়্যানসহ বন্দর ইউনিয়ন বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

সার্বিক তত্ত্বাবধানে ধামগড় ইউনিয়ন বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. আলমগীর, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাবিবুল্লাহ আপন, সাংগঠনিক সম্পাদক সালাউদ্দিন ইউসুফ, সহ- সভাপতি মো. কবির ও মোশারফ মৃধা।