নারায়ণগঞ্জ টাইমস | Narayanganj Times

মঙ্গলবার,

২৮ মে ২০২৪

বন্দরে স্বেচ্ছাসেবকদের নিয়ে প্যালিয়েটিভ কেয়ার বিষয়ে সভা অনুষ্ঠিত

নারায়ণগঞ্জ টাইমস

প্রকাশিত:১৮:৩১, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

বন্দরে স্বেচ্ছাসেবকদের নিয়ে প্যালিয়েটিভ কেয়ার বিষয়ে সভা অনুষ্ঠিত

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে কমিউনিটি স্বেচ্ছাসেবকদের নিয়ে প্যালিয়েটিভ কেয়ার বিষয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায় উপজেলার টি- হোসেন গার্ডেনে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

আয়াত এডুকেশন’র আয়োজনে ‘মমতাময় নারায়ণগঞ্জ’ প্রকল্পের আওতায় বন্দর উপজেলার স্বেচ্ছাসেবকদের কমিউনিটি ভিত্তিক প্যালিয়েটিভ কেয়ার কার্যক্রমের সাথে তাদের উদ্বুদ্ধ করতে এবং প্রকল্পের কল্যাণমূলক কাজে তাদের সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে এ সভার আয়োজন করা হয়।  

আয়াত এডুকেশনের প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর সুমিত বণিক এর সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন মমতাময় নারায়ণগঞ্জ প্রকল্পের ফিল্ড অফিসার মোঃ হাসান হাফিজুর রহমান, কমিউনিটি মবিলাইজার ফাহিম হোসেন, অনন্যা রহমান, কমিউনিটি ভলান্টিয়ার ও সংবাদকর্মী ইউসুফ আলী প্রধান, বিডি ক্লিন’র পূজা রাণী সরকার, এস এম বিজয় প্রমুখ।  

প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর সুমিত বণিক বলেন, ‘আমরা যদি একটি মমতাময় সমাজ ব্যবস্থার কথা ভাবি, তাহলে সেখানে ভলান্টিয়াররা হচ্ছেন এর প্রাণ। তাঁদের ছাড়া একটি মমতাময় সমাজ কাঠামোর কথা কল্পনা করা যায় না।

আর মমতাময় সমাজ কাঠামো তৈরি হলে, সেখানে আমরা আমাদের সমাজের অনিরাময়যোগ্য রোগে আক্রান্ত রোগীদের জীবনের শেষ সময়টুকুতে তাদের জীবনমান উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারবো। সেই সাথে বিশ্বাস করি, ভলান্টিয়ারদের সম্পৃক্ততার মাধ্যমে আমরা আমাদের পরিষেবাগুলি আরও বেশি লোকের কাছে পৌঁছাতে পারব।’

ফিল্ড অফিসার মোঃ হাসান হাফিজুর রহমান তার বক্তব্যে বলেন, ‘ভলান্টিয়াররা শুধুমাত্র প্যালিয়েটিভ কেয়ার রোগীদের পাশেই থাকেন না, তারা আরো নানা ধরণের সমাজ সেবামূলক কাজের সাথে সম্পৃক্ত। আর এ সকল কাজের সম্পৃক্ততার মাধ্যমে তাদের মধ্যে ইতিবাচক মানসিকতা ও সামাজিক দক্ষতা তৈরি হয়, যেটি তার ব্যক্তি এবং পেশাগত জীবনে সাফল্য অর্জনে সহায়ক হচ্ছে।’   

ভলান্টিয়ার ও সংবাদকর্মী ইউসুফ আলী প্রধান বলেন, ‘আমি মমতাময় নারায়ণগঞ্জ প্রকল্পের অধীনে প্যালিয়েটিভ কেয়ারের যেসকল রোগীর বাড়িতে পরিদর্শনের জন্য গিয়েছি, সবার কাছে যাওয়ার পর আমার ভাবনাগুলো পুরো পাল্টে গিয়েছে।

শুধুমাত্র একটু সময় দিয়ে, সামান্য একটু খেলনা কিনে দিয়ে, পছন্দের খাবার কিনে দিয়ে, বিনিময়ে তাদের যে নির্মল ভালোবাসা ও তৃপ্তির হাসিটুকু দেখতে পেয়েছি, সেটা আসলে ভাষায় প্রকাশ করার মতো না। আমার বিশ্বাস, এ কাজের মাধ্যমে আপনারা আমার মতো এ ধরণের প্রশান্তির সন্ধান পাবেন।’    

উল্লেখ্য যে, তিন বছর মেয়াদী ‘মমতাময় নারায়ণগঞ্জ’ এই পাইলট প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবায় প্যালিয়েটিভ কেয়ারকে সংযুক্তিকরণ। নিরাময় অযোগ্য, জীবন সীমিত রোগে আক্রান্ত রোগীদের জীবনের প্রান্তিক সময়টুকু ভোগান্তি বিহীন, যন্ত্রনা বিহীন ও নিরাপদ করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা প্রদান করা।

সেইসাথে প্রকল্পটি আক্রান্ত ব্যক্তি ও তার পরিবারের শারীরিক, মানসিক, সামাজিক ও আত্মিক কষ্টগুলো কমিয়ে জীবনের গুণগত মান উন্নয়ন করার লক্ষ্যে কাজ করছে।

বক্তব্য ও অভিজ্ঞতা উপস্থাপনের পর উপস্থিত স্বেচ্ছাসেবকবৃন্দ মুক্ত আলোচনা পর্বে এ সংক্রান্ত নিজেদের মতামত ও প্রশ্নগুলো তুলে ধরেন।

সভায় অন্যানের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন আয়াত এডুকেশনের এ্যাসিন্ট্যান্ট ফিল্ড অফিসার অশ্রু আক্তার, বিডি ক্লিন’র বন্দর উপজেলা সমন্বয়কারী মুন্না সাহেব, সংবাদকর্মী সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।
 

সম্পর্কিত বিষয়: