নারায়ণগঞ্জ টাইমস | Narayanganj Times

শনিবার,

২৬ নভেম্বর ২০২২

পাঠানটুলিতে কিশোর গ্যাং রাব্বী-আমান বাহিনী বেপরোয়া  

নারায়ণগঞ্জ টাইমস

প্রকাশিত:১৯:৫৫, ৫ অক্টোবর ২০২২

পাঠানটুলিতে কিশোর গ্যাং রাব্বী-আমান বাহিনী বেপরোয়া  

সিদ্ধিরগঞ্জের পাঠানটুলি এলাকায় রাব্বী, আমান বাহিনী বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। মাদক ব্যবসা, গার্মেন্টস কর্মীদের বেতনের টাকা, মোবাইল ছিনতাইসহ নানা অপকর্ম করে বেড়াচ্ছে। এই বাহিনীর অত্যাচারে পাঠানটুলি নীট কনসার্ন গ্রুপের শ্রমিকরা ও এলাকা বাসীরা অতিষ্ঠ। 


তথ্য সূত্রে জানা যায় পাঠানটুলি, এসি আই পানিরকল, কো-অপারেটিভ এরিয়ায় জমজমাট মাদক ব্যবসা গড়ে তোলেছে এই রাব্বী বাহিনী। রাব্বী পিতা মিসির আলী, আমান পিতা কাল্লু ভূইয়া, অভি,  শাওন সহ এই বাহিনীর সবাই মাদকের সাথে লিপ্ত হয়ে এলাকায় এক বিশাল কিশোর গ্যাং বাহিনী গড়ে তুলেছে। 


অভিযোগ সূত্রে আরো জানা যায় কিশোর গ্যাং রাব্বী, আমান, শাওন, অভি স্থানীয় ভাড়াটিয়া, দীর্ঘদিন যাবত পাঠানটুলি এলাকার প্রভাবশালী নেতাদের ছত্র ছায়ায় থেকে স্কুল, কলেজ পড়ুয়া ছাত্রীদের ইভটিজিং নীট কনসার্ন গ্রুপের শ্রমিকদের ইভটিজিং, ছিনতাই পকেটমার ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে।

 

নীট কনসার্ন গ্রুপের শ্রমিক তবিবুর রহমান বলেন, আমি নীট কনসার্ন গ্রুপে দীর্ঘ দিন যাবত চাকুরি করে আর্সছি হঠাৎ একদিন আমার পায়ে পা দিয়ে ঝগড়া শুরু করলো তারপর পাঠানটুলি মসজিদের সামনে মোখলেসুর রহমানের বাড়ির ৪র্থ তলায় নিয়ে গিয়ে এক প্রকার বেদম মারধর শুরু করে। 


একপর্যায়ে বলে এই মাসের পুরো বেতন আমার এখানে দিয়ে জাবি নয়তো প্রাণে মেরে ফেলবো তারপর বেতন হলে আমাকে চোখে চোখে রাখে বেতন হওয়ার সাথে সাথেই আমার পুরো বেতন ও মেবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। 


তারপর অফিস কর্তৃপক্ষকে জানালে তারা বাহিরের বিষয় বলে আমলে নেন না। আমি সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে একটি সাধারণ ডাইরি করে রেখেছি।


এলাকাবাসী জানান পাঠানটুলি এলাকায় শিল্প প্রতিষ্ঠান থাকায় দেশের বিভিন্ন স্থানের মানুষ এসে বসবাস করছেন তাই পাঠানটুলি একটি ঘনবসতি এলাকা। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে বেপরোয়া হয়ে পরেছে রাব্বী -আমান বাহিনী। 


এ বিষয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর ইফতেখার আলম খোকনকে   ফোনে কল দিলে তিনি বলেন, আমি হজ্ব করে আসার পরে এমন একটি ঘটনা শুনেছি  তবে নিদিষ্ট কোন তথ্য প্রমাণ না পাওয়ায় এ্যাকশানে যেতে পারিনি। তবে আপনাদেরসহ সকলের সহযোগিতা পেলে কিশোর গ্যাং নির্মুল করবো। 


সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মশিউর রহমান বলেন, কিশোর গ্যাং এখন চরম আকারে ধারন করেছে। এদের রুখতে আমরা প্রতিনিয়ত পদক্ষেপ নিচ্ছি। অপরাধী যত বড়ই হউক না কেন আইনের কাছে ধরা পরতেই হবে। অপরাধীদের ধরে আইনের আওতায় আনতে আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে।